বলে কয়ে বিপদ আসে না

রিয়াজুল হক
আমার বাসার পাশে একটা রেস্টুরেন্ট আছে। অফিস থেকে ফিরে মাঝেমধ্যে আমি সেখানে বসি। রেস্টুরেন্টের মূল কারিগর ছেলেটির নাম সুলতান। আমি গেলে আলাদাভাবেই খাতির-যত্ন করে। আমি কি খাব, আজকে কি খেলে ভালো লাগবে, বলার আগেই দেখা যায় সুলতান ব্যবস্থা করে ফেলে। সন্ধ্যার পর রেস্টুরেন্টে ঢুকলাম। সুলতান কে দেখতে পেলাম না। মালিককে জিজ্ঞেস করলাম, আপনার মূল কারিগর কোথায়?

মালিক: দুপুরে চুলা জ্বালানো ছিল। চুলার উপরের কড়াই পাশে রাখতে গিয়ে কড়াইয়ের গরম তেল সুলতানের হাতে, বুকে পড়ে যায়। ঐ সময় হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলাম। এখন বাসায় আছে।

শুনে মনটা খারাপ হয়ে গেল। কে, কখন, কোন বিপদে পড়বে এক মুহূর্ত আগেও সেটা চিন্তা করা যায় না। আর সুলতানের সারাটা দিনই তো কাটে গরম তেল, আগুনের সাথে। আজ সেখানেই ঘটল দুর্ঘটনা। দ্রুত সুস্থ হয়ে সুলতান ফিরে আসুক, এই প্রার্থনা রইল।

লেখক: রিয়াজুল হক, উপ পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক