ফ্লোরিডা মজলো তাহসান প্রেমে

বাংলাবাজার পত্রিকা
বিনোদন: যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ল্যান্টানায় অবস্থিত আমেরিকান জার্মান ক্লাব শনিবার মেতেছিলো প্রবাসী বাংলাদেশিদের এক মিলনমেলায়। এ সময় প্রবাসীদের সুরের জাদুতে মাতান বাংলাদেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এবং অভিনেতা তাহসান খান।

আলো আলো, ছুঁয়ে দিলে মন, প্রেমাতাল সহ নিজের জনপ্রিয় গানগুলো দিয়ে প্রবাসী দর্শকদের মন ছুঁয়ে দেন তিনি।

এ দিন সকাল থেকেই ফ্লোরিডা এবং এর আশপাশের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে আমেরিকান বাংলাদেশী দর্শক শ্রোতারা ঢাকা ক্লাবের আয়োজনে আয়োজিত ‘দেশি উইন্টারফেস্ট ২০২০’ এ অংশ নেয়ার জন্য দলে দলে ভিড় করতে থাকেন।

দিনের শুরুতেই ব্যস্ততা দেখা যেতে থাকে ওয়াশিংটন ডিসি থেকে আগত মেলায় অবস্থিত ভ্রাম্যমান বাংলাদেশ অ্যাম্বাসির সামনে।

এখানে প্রবাসী বাংলাদেশিরা নানা রকম কনস্যুলার সেবা গ্রহণ করেন। বেলা গড়ানোর সাথে সাথে দর্শকদের উপস্থিতিও বাড়তে থাকে।

নাচ, গান, কৌতুক পরিবেশনের মাধ্যমে দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন স্থানীয় কণ্ঠ এবং নৃত্যশিল্পীরা।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে কৌতুক পরিবেশন করে দর্শকদের মাতিয়ে রাখতে নিউ ইয়র্ক থেকে এসেছিলেন আমেরিকান বাংলাদেশী কৌতুক অভিনেতা আবরার।

বাংলা ও হিন্দি নানা ধরণের গানের পাশাপাশি নিজের মৌলিক গান গেয়ে দর্শকের মাতিয়ে রাখেন সংগীতশিল্পী শোভন আনোয়ার। তার সাথে ডুয়েট গানে কণ্ঠ মিলান সুমিত্রা দেব।

রাত ৮ টার কিছুক্ষন পর মঞ্চে উঠেন বাংলাদেশ থেকে আগত জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এবং অভিনেতা তাহসান খান।

তিনি একে একে তার জনপ্রিয় সব গান পরিবেশন করতে থাকেন। আলো, ছুঁয়ে দিলে মন, প্রেমাতাল ইত্যাদি জনপ্রিয় গানগুলো গাওয়ার সময় তাহসানের থাকে কণ্ঠ মিলাতে দেখা যায় প্রবাসী দর্শকদের।

তাহসান বলেন, বাংলাদেশের দর্শকরা গান গাওয়ার সময় বেশ অংশগ্রহণমূলক থাকে, প্রবাসী দর্শকরা একটু রিসার্ভ থাকেন।

কিন্তু এখানে আজকে গান গাওয়ার সময় দর্শকদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি আমাকে বেশ আনন্দ দিয়েছে।

তাছাড়া আমি প্রায় শতাধিক দর্শকদের সাথে সেলফি তুলেছি। সব মিলিয়ে এই আয়োজন আমাকে বেশ আনন্দ দিয়েছে।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধায়ক দিপু খান বলেন, প্রতি বছর আমাদের এই উইন্টারফেস্ট এর আয়োজনের প্রাণ থাকেন আমাদের হাজার হাজার দর্শকরা।

তারা নেচে, গেয়ে, এবং চমৎকারভাবে অংশগ্রহণ করে প্রমান করলেন যে আমাদের দর্শকরা কতটা সংস্কৃতিমনা।

তাছাড়া উপস্থিত দর্শকদের জন্য আমরা ব্যবস্থা করেছিলাম দেশীয় নানা ধরণের মুখরোচক খাবার এবং আকর্ষণীয় দেশীয় পোশাকের স্টলের।

সব মিলিয়ে একটি সফল আয়োজনের অংশীদার হতে পেরে ঢাকা ক্লাব অফ ফ্লোরিডার পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই সংশ্লিষ্ট সবাইকে।