সংস্কৃতি বন্দ্যোপাধ্যায়ের ত্রিরত্ন

আনন্দধারা
তোমার চোখের থেকে
নির্বাসন তুলে নিলে
পরিচিত বিস্ফোরণগুলো
কাজল এঁকে দেয়।
তুমি রং লাগাও
ছায়ায় ছায়ায় সুর বসিয়ে
ভরিয়ে তোলো রাগ, দীর্ঘশ্বাস …
স্তব্ধতা ভাঙে,উড়িয়ে ধুলো

বুকজলে ভেসে যায় ঋতুদাগ

বিলম্বিত
আমার উপুড় করা
হাসিখুশি সংসার
জল ঢেলে দেয়
বুকের ওপর অস্ফুট দীর্ঘশ্বাস…
জোড়াতালি ঝুলবারান্দায়
প্রতিশ্রুতির ফোঁড়া,
মাটি ছুঁয়ে থাকে।

আগুনের পাশে রাত্রি ও আকাশ

উড়াল
তুমি ছুঁয়ে দিলেই
ছোঁয়াচে খারাপগুলো
পাখি হয়ে উড়ে যায়।
শান্ত নরম তাপ
সারিয়ে তোলে বানভাসি ক্ষত,
পাহাড় গড়িয়ে জ্যোৎস্না নামে।
তুমি ভুলে যাও
দেহতত্ত্বের গান,ফুলের বাগান
লাল পরীদের মুখ,
আমিও শরীরী খেলা
লন্ডভন্ড করি

ডানা ভেসে যায়…
বিকেল জুড়ে কত
আগুন ঝাপটাই