প্রধানমন্ত্রীর কাছে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের খোলা চিঠি

বাংলাবাজার পত্রিকা
ঢাকা: শিক্ষকদের দ্রুত বদলী বাস্তবায়নের জন্য এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বদলি বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খোলা চিঠি (অনুরোধ পত্র)। বাংলাবাজার পত্রিকার পাঠকদের জন্যে চিঠিটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

বেসরকারি শিক্ষকদের দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা বদলী। এমপিওনীতিমালা ২০১০ ও ২০১৮ এ উল্লেখ আছে সরকার চাইলে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বদলী ব্যবস্থা চালু করতে পারবে।

এমপিওনীতিমালা ২০১৮ এর ১২ ধারা অনুযায়ী ইনডেক্সধারী শিক্ষকরা বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে প্রতিষ্ঠান পরিবর্তনের সুযোগ পাবেন। বদলী বাস্তবায়নের প্রজ্ঞাপন জারী না হওয়ায় সাধারণ বদলী প্রত্যাশী শিক্ষকদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।

২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের অনলাইন সফটওয়্যার এর মাধ্যমে বদলী ব্যবস্থা চালু করার কথা থাকলেও এ বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ অদ্যাবধি কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন নাই।

কিন্তু বদলী বিষয়ে এখন পর্যন্ত সু-স্পষ্ট কোন দিক নির্দেশনা বা প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়ায় শিক্ষকদের মাঝে ক্ষোভ দানা বাধতে থাকে।

আর তাই বদলী প্রত্যাশী শিক্ষকরা প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সু-স্পষ্ট দিক নির্দেশনা বা প্রজ্ঞাপন জারির প্রত্যাশায় গত ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং এমপিওভূক্ত শিক্ষকদের বদলী বাস্তবায়ন কমিটির ব্যানারে ঢাকা প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করা হয়।

গত ২৫-১০-২০১৯ইং তারিখ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পূণরায় অবস্থান কর্মসূচি ও প্রেসক্লাব কেন্দ্রিক পদযাত্রা করা হয়। সে ধারায় ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতীকী অনশণ করা হবে।

বদলী ব্যবস্থা চালু না থাকায় বেসরকারী শিক্ষকরা নিজ জেলার বাইরে ৫০০-৭০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছেন। মাত্র ১০০০ টাকা বাড়ী ভাড়ায় কোন বাসা ভাড়া পাওয়া যায় না। ফলে প্রাপ্ত বাড়ী ভাড়ার চেয়ে অনেক বেশি টাকায় বাড়ী ভাড়া নিতে হয়।

অনেক শিক্ষকের অন্য কোন আয় না থাকায় প্রাপ্ত বেতনে তাদের মানবেতর জীবন-যাপন করতে হয়। এ থেকে পরিত্রাণের একমাত্র উপায় ঐচ্ছিক বদলী। বদলী ব্যবস্থা চালু হলে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি পাবে।

শিক্ষায় এক ঘেয়েমী দূর হবে। শিক্ষায় শিক্ষকদের সকল দুর্নীতি দূর হবে। ম্যানেজিং কমিটির স্বেচ্ছাচারিতা থেকে শিক্ষকরা মুক্তি পাবেন। মেধাবীরা শিক্ষকতায় আসতে আগ্রহী হবেন। শিক্ষার্থীরা শিক্ষকদের প্রতিহিংসা থেকে রক্ষা পাবেন।

শিক্ষা ক্ষেত্রে শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করবে। শিক্ষা বান্ধব সরকারের কাছে বিনীত অনুরোধ, শিক্ষাকে সর্বোচ্চ আসনে অধিষ্ঠিত করতেই আগামী শিক্ষক নিয়োগের পূর্বেই বদলী ব্যবস্থা চালু করার জোর দাবি জানাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিনীত প্রার্থণা ঐচ্ছিক বদলী ব্যবস্থা চালুর প্রজ্ঞাপন জারি ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুসারে ইনডেক্সধারী শিক্ষকদের বিভাগীয় প্রার্থী হিসেবে গণ্য করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা উপ-মন্ত্রী, শিক্ষা সচিব ও মহাপরিচালক (মাউশি) কে সবিনয় অনুরোধ করছি। বিজ্ঞপ্তি।