সমুদ্রে রোহিঙ্গা বোঝাই ট্রলার ডুবি, ১৫ মৃতদেহ উদ্ধার

বাংলাবাজার পত্রিকা
ডেস্ক: বঙ্গোপসাগরে সেন্টমার্টিন উপকূলের অদূরে একটি ট্রলার ডুবিতে নারী শিশুসহ ১৫ রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে এই পর্যন্ত ৫৬ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ট্রলার ডুবির এই ঘটনা সংঘটিত হয়।

ঘটনাস্থলে নৌ বাহিনী এবং কোস্ট গার্ড উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এখনো ৫০ জন নিখোঁজ রয়েছে বলে জানা গেছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, রাতের কোন এক সময়ে ট্রলারটি রোহিঙ্গাদের নিয়ে টেকনাফ উপকূল থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য রওয়ানা হয়েছিল।

সম্ভবত অতিরিক্ত বোঝাইয়ের কারণে ট্রলারটি সাগরে ডুবে গেছে। ট্রলারে কতজন লোক ছিল এখনও জানা যায়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, খবর পেয়ে নৌ বাহিনী ও কোস্টগার্ড দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে।

সবশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৫টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে আরো ৫৬ জনকে।

নৌ বাহিনী ও কোস্টগার্ড উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। যারা উদ্ধার হয়েছে তাদের সবাই রোহিঙ্গা। পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, দুর্ঘনাস্থল থেকে জীবিত উদ্ধারকৃতদের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

তখন তারা কোন ক্যাম্পের বাসিন্দা তা জানা জানা যাবে।

কোস্টগার্ড সেন্টমার্টিন স্টেশনের ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম-উল হক জানিয়েছেন, সকালে সেন্টমার্টিন দ্বীপের অদূরে ১৫ কিলোমিটার পূর্ব-দক্ষিণ সাগরে ট্রলার ডুবির এই ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে খবর পাওয়ার পর কোস্টগার্ড ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।কোস্টগার্ডের পাশাপাশি নৌ-বাহিনীর একটি জাহাজ উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নিয়েছে।

উল্লেখ্য, কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩২টি ক্যাম্পে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে।

এই রোহিঙ্গাদের অনেকে সংঘবদ্ধ কিছু দালাল চক্রের মাধ্যমে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করছে। এ ঘটনায় দুই দালালকে আটক করা হয়েছে।