আমার দুঃখিনী বর্ণমালা

আমার দুঃখিনী বর্ণমালা
-ইন্দ্রাণী মণ্ডল

আমার দুঃখিনী বর্ণমালার বুকে রক্তের দাগ আঁকা।
যাকে জড়িয়ে বেড়ে ওঠে আমার স্বপ্নের দৃপ্ত শাখা।
সেই শাখা আন্দোলিত হয় মেঠো পথে একতারার সুরে,
কোনো এক একুশের রক্ত-শিশির ভেজা ভোরে!

আমার দুঃখিনী বর্ণমালার বুকে হাজার গুলির ক্ষত!
যার ভাটিয়ালী সুর কানে বাজে বেহুলার নূপুরের মত।
সে নূপুর বাজে বট-অশ্বত্থ -হিজলের পাতায় পাতায়,
ঝড় তোলে শূন্য বুকে,মন ভরে বেদনায়!

আমার দুঃখিনী বর্ণমালার বারবার কণ্ঠ হয় রোধ!
হয়তো রক্তের দামে আবার গড়তে হবে এর প্রতিরোধ।
শহীদের রক্তমাখা একুশের ফিনিক্স এসেছে আবার আজ ফিরে,
স্লোগানে-মিছিলে বন্যা-জোয়ার বাংলার বুক চিরে।