ছুটির দিনে সড়কে ঝরল ২৪ প্রাণ

বাংলাবাজার পত্রিকা
ডেস্ক: সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার, এই ছুটির দিনেই সড়কে ঝরল একই পরিবারের ১০ জনসহ ২৪ জনের।এদিকে হবু স্ত্রীকে আংটি পরানো হলো না ইমনের।

তার আগেই থেমে গেল সব। হবু শ্বশুরবাড়ি সুনামগঞ্জ পৌঁছানোর আগেই সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ইমন খানসহ পরিবারের ১০ জন।

এ ছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছয়জন, ময়মনসিংহে দুজন, সাভারে দুজন, ফেনীতে দুজন, কুমিল্লায় একজন ও রাজধানীতে একজনসহ মোট ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার এসব দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

হবিগঞ্জ: মাত্র কদিন আগেই মধ্যপ্রাচ্য থেকে দেশে এসেছেন বিয়ে করবেন বলে।

বেশ ধুমধাম করেই চলছিল কনে দেখার আয়োজন। বিয়ে অনেকটা পাকাপোক্তও হয়েছিল। কিন্তু বিয়ের বাদ্য বাজার আগেই থেমে গেল সব।

হবু স্ত্রীকে আংটি পরানো হলো না ইমনের। হবু শ্বশুরবাড়ি পৌঁছানোর আগেই সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ইমন খানসহ পরিবারের নয়জন।

ইমনের স্থায়ী ঠিকানা বরিশালে। কিন্তু থাকতেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়। সেখান থেকে স্বজনদের নিয়ে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে যাচ্ছিলেন হবু কনেকে আংটি পরাতে।

নিহত নয়জনের মধ্যে আটজনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন— ইমন খান, তার বাবা আব্বাস উদ্দিন, আত্মীয় রাজীব, মহসিন, রাব্বী, আসমা, ইমরান ও সুমনা।

এদের মধ্যে সুমনা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বাকিরা ঘটনাস্থলেই মারা যান।

শেরপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এরশাদুল হক ভূঁইয়া জানান, নিহতদের পরিবারের সদস্যরা মোবাইল ফোনে পুলিশকে জানিয়েছেন ইমনের বিয়ে ঠিক করা হয়েছিল।

হবু কনেকে আংটি পরাতে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে যাচ্ছিলেন তারা। তিনি আরও জানান, লাশগুলো শেরপুর হাইওয়ে থানায় রাখা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে নিহতদের স্বজনরা নবীগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। তারা এলেই মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কান্দিরগাঁও এলাকায় রাস্তার পাশে

একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুমড়েমুচড়ে যায় মাইক্রোবাসটি। দুর্ঘটনায় আটজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

অপর একজন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। খবর পেয়ে শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ, নবীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস,

গোপলার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতদের লাশ ও আহতদের উদ্ধার করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পালসহ কর্মকর্তারা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় শুক্রবার ভোররাত ৩টার দিকে বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে ছয়জন নিহত হয়েছেন।

এতে আহত হয়েছেন আরও চারজন। নিহতদের মধ্যে ৪ জনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন— সোহান (২০), সাগর (২২),

রিফাত (১৬) ও ইমন (১৯)। বিজয়নগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) প্রভাত চন্দ্র দাস বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যমুনা

ব্রিকফিল্ডের সামনে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা লিমন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের বন্দর এলাকা থেকে সিলেটগামী

ওই মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে বিকট শব্দে মাইক্রোবাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে এতে আগুন ধরে যায়।

এতে মাইক্রোবাসটির ৬ যাত্রী দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় মেহেরাবাড়ী এলাকায় মাছের দুই পিকআপ সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন।

এতে আরও দুজন আহত হয়েছেন। আহতদের স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।

নিহতরা হলেন— নেত্রকোনার ঠাকুরাকোনা গ্রামের পিকআপভ্যানের চালক রাজন রবিদাস (২২) ও নারায়ণগঞ্জের

রূপগঞ্জ থানার তালাশ কোর্ট এলাকার আবদুস সালামের ছেলে মো. আজিম (২৩)।

স্থানীয় ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা মাছের

একটি পিকআপ ভালুকা মেহেরাবাড়ী এলাকায় লাবিব ফ্যাশনের সামনে আসলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আরেকটি মাছ ভর্তি পিকআপ পেছনে ধাক্কা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলে একজন মারা যান। এ দুর্ঘটনায় আরও ৩ জনকে আহত অবস্থায় নিয়ে আসলে কর্মকর্তা চিকিৎসক একজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান।

সাভার: ঢাকার সাভারে বাস ও ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে রাতে ঢাকা-আরিচা ও আবদুল্লাপুর-বাইপাইল সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন রাজধানীর শেওরাপাড়ার কাজী নাজমুল হক (৪১) ও নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের কনস্টেবল আকাশ আহমেদ (২২)।

আশুলিয়া থানার পুলিশ জানায়, গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের নাগরপুর থেকে মোটরসাইকেলে ঢাকার বাসায় যাওয়ার পথে

নাজমুল হক আবদুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কের জামগড়া এলাকায় রিকশার সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে বাসের নিচে গিয়ে পড়েন।

এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। অন্যদিকে সাভার হাইওয়ে থানার পুলিশ জানায়, আশুলিয়ার শ্রীপুরের নিজ বাড়ি থেকে

মোটরসাইকেলে নারায়ণগঞ্জে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন আকাশ। রাত ১টার দিকে সাভারের উলাইল এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে

একটি ট্রাক মোটরসাইকেলসহ তাকে চাপা দিলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ফেনী: সাতবাড়িয়া এলাকায় সোনাগাজী-ফেনী সড়কে মোটরসাইকেলে করে যাওয়ার সময় নির্মাণাধীন সেতুর নিচে পড়ে ২ জন নিহত হয়েছেন।

তারা হলেন— আজিজুল হক (২৮) ও জিয়া উদ্দিন বাবলু (২২)। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে মতিগঞ্জ ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আজিজুল হকের বাড়ি মিরসরাইয়ের ধূম ইউনিয়নের নাহেরপুর এলাকায় এবং জিয়া উদ্দিন জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ইমামপুর এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলেই মারা যান আজিজুল। গুরুতর আহত অবস্থায় জিয়া উদ্দিনকে

প্রথমে ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে

গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুমিল্লা: দাউদকান্দি উপজেলার জিংলাতলী স্থানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ঢাকাগামী একটি বাসের চাপায় মোটরসাইকেলের

আরোহীর মৃত্যু হয়। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)

সরকার আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, নিহত ব্যক্তির পরিচয় জানা যায়নি। লাশ দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশ হেফাজতে রাখা আছে।