ইতালিতে বাংলাদেশি তাহমিনা ইয়াসমিন শশীর সাফল্য

বাংলাবাজার পত্রিকা
ডেস্ক: ইতালিতে প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশি লেখিকা তাহমিনা ইয়াসমিন শশী। তার সাফল্যে সেখানকার প্রবাসী বাংলাদেশিরা গর্বিত।

ইতালির মিলানের মুডেক কালচারাল মিউজিয়ামে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়েছে গবেষক, লেখক, সাংবাদিক, দার্শনিক ও প্রফেসরদের নিয়ে এক পর্যালোচনামূলক অনুষ্ঠান।

মিলানো ইউনিভার্সিটি দেইলি স্টুডির ইংলিশ প্রফেসর নিকোলেত্বা ভাল্লোরিনির সঞ্চালনায় মুডেক এ দেল উফিচো রেতি কোপেরাছিয়নে কুলোতুরালে দেল কমুনে দেল মিলানো চিতা মন্দ বুকছিতির আয়োজনে এটি অনুষ্ঠিত হয়।

এ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক এবং ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার ফেস্টিভ্যাল তরিনোর সমন্বয়কারী দানিয়েলা ফিনক্কি, ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার ফেস্টিভ্যাল তরিনো থেকে ৩বার পুরস্কার প্রাপ্ত লেখিকা তাহমিনা ইয়াসমিন শশী।

আদেছ তেছফেরিয়াম লেখক এবং নৃতত্ত্ব গবেষক মারিয়ে মজে। পরিদর্শক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেপ্পিনো মাতারেচ্ছি , চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী টিপুসহ আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানের নাম দেয়া হয়েছিল Narrazione Femminile.

ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার ফেস্টিভ্যাল তরিনোতে চলতি বছরের ১৩ মে তাহমিনা ইয়াসমিন শশীর গল্প ভুলনেরাবিলে তৃতীয় স্থান দখল করেছিল। ওই গল্পটিই এখানে নির্বাচন করা হয়েছে।

ভুলনেরাবিলে গল্পটি ছিল সিরিয়া থেকে আসা এক শরণার্থী নারীকে নিয়ে। ওই নারীর সাহসিকতার কথা, সেই যুদ্ধের কথা তুলে ধরা হয়েছিল যা কি না হাজারো নির্যাতিত নিপীড়িত নারীর অনুপ্রেরণা যোগায়।

বাংলাদেশের শরীয়তপুরের মেয়ে তাহমিনা ইয়াসমিন শশীর এ সাফল্যে দেশবাসীর সঙ্গে তার জেলাবাসীও গর্বিত।