তুমি অনেক বদলে গেছো

তুমি অনেক বদলে গেছো
জোবায়ের আহমেদ নবীন

জান, অ্যাই জান, জানরে ভালো আছো তুমি?
কতোদিন তোমার ওই পিপাসার্ত চোখে আমায় দেখি না,
অথচ, একটা সময় ছিল;
যখন তোমার সকাল শুরু হতো আমায় দেখে।

কতোদিন তুমি মন খুলে আমার সঙ্গে কথা বলো না
সে হিসাব কি রাখো?
শেষ কবে আমার সঙ্গে তোমার কথা হয়েছে
তা কি তোমার মনে আছে জান?

কতোদিন জান?
কতোদিন তুমি হাসো না সেই আগের মতো,
অথচ,
তুমি হাসলে আকাশ হাসতো বৃষ্টি হয়ে
পাহাড়ও হাসতো, লোকে বলতো ওটা ঝর্ণা।

তোমার মনের বিশাল আকাশে এক সময়
শুধু আমারই রাজত্ব ছিল,
আমার ভালোবাসার সীমাহীন পাগলামীতে
তুমিও মেতেছিলে বাধভাঙা উচ্ছ্বাসে।

এখনো হয়তো আগের মতোই ভালোবাসো আমায়
এখনো বুকে আগলে রাখো সেইসব সময়,
স্মৃতির উসকানিতে হয়তো চোখের জলও ফেলো।

তুমি হয়তো জানো না, এই আমি
হ্যা, এই আমি এখনো তোমায় ভালোবাসি,
সেই আগের মতোই; পাগলের মতো ভালোবাসি জান।
কিন্তু তুমি?
তুমি অনেক বদলে গেছো জান
এখনকার তুমি, আমার সেই তুমি নও,
যে মানুষটার ভাবনার সবটুকু আবেশে
জড়িয়ে ছিলাম আমি, আমার সেই তোমাকে
আর খুঁজে পাই না কেন বলতে পারো?

তুমি কি জানো?
আমার আকাশে এখনো দিবা-রাত্রি তুমিই উড়ে বেড়াও,
তোমায় নিয়েই এখনো স্বপ্ন সাঁজাই রঙ্গিণ আবেশে;
এখনো হাওয়ায় চিৎকার করে বলি ভালোবাসি।