এবার মোবাইলে মিলবে ভাতা

বাংলাবাজার পত্রিকা
ডেস্ক: অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠীকে নগদ অর্থ সহায়তার মাধ্যমে দারিদ্র্য নিরসন ও বৈষম্য কমানোর লক্ষ্যে বিভিন্ন খাতে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে সরকার।

যদিও এই কর্মসূচি বাস্তবায়নে দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতিসহ বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। এরফলে প্রকৃত সুবিধাভোগীদের এই সহায়তা থেকে বঞ্চিত হওয়ার নজিরও দেখা যায়।

ভবিষ্যতে এই কর্মসূচির অর্থ যেন প্রকৃত উপকারভোগীর কাছে পৌঁছায় সে উদ্দেশ্যে এবার মোবাইলের মাধ্যমে টাকা পাঠানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।

আর তা নতুন বছরেই শুরু করতে চায় সরকার। আগামী ১৪ জানুয়ারি এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এখন থেকে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পাঠানো হবে।

সে লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার সরকার-প্রাইভেট পার্টনারশিপ-জিটুপি পদ্ধতিতে সরাসরি সুবিধাভোগীদের কাছে ভাতা পাঠানোর জন্য মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রতিষ্ঠান হিসেবে ‘নগদ’ ও ‘বিকাশ’ এবং সমাজসেবা অধিদপ্তরের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়।

গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ উদ্যোগ অনুমোদন করার পর এই চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়।

সূত্র জানায়, পরিকল্পনা অনুযায়ী গত আগস্টে দেশের আট বিভাগের আট ইউনিয়নে পরীক্ষামূলক এ কার্যক্রম শুরু করে সমাজসেবা অধিদপ্তর।

প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকা বিভাগের গোপালগঞ্জ জেলার কোটালিপাড়ার কান্দি ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম বিভাগের কুমিল্লা জেলার লালমাই উপজেলার বাগমারা ইউনিয়ন,

সিলেট বিভাগের দক্ষিণের সুরমা উপজেলার লালাবাজার ইউনিয়ন, রংপুর বিভাগের লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী ইউনিয়ন,

রাজশাহী বিভাগের নাটোর জেলার গুরুদাসপুর উপজেলার খুবজিপুর ইউনিয়ন, ভুলবার দাকোপ উপজেলার কামারখোলা ইউনিয়ন,

বরিশাল বিভাগের ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলার লর্ড হার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের মোট ১৩ হাজার ৮৮৫ জন ভাতাভোগীর মাঝে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ভাতা দেয়ার সিদ্ধান্ত ছিল।

সে উদ্যোগ এখন পর্যায়ক্রমে সারাদেশে বাস্তবায়ন হবে। এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন হলে সুবিধাভোগীরা নিজের মোবাইল থেকে সহজে টাকা তুলতে পারবেন।