কুমিল্লায় প্রতীক পেয়ে প্রচারণায় প্রার্থীরা

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতীক পাওয়ার পর আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মনিরুল হক সাক্কু- বাংলাবাজার

বাংলাবাজার পত্রিকা
কুমিল্লা: কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেয়া প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। শুক্রবার প্রতীক পাওয়ার পর মেয়র ও কাউন্সিল প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেন।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন, আওয়ামী লীগের আরফানুল হক রিফাত, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. রাশেদুল ইসলাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মনিরুল হক সাক্কু, কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন এবং কুমিল্লা নাগরিক ফোরামের সভাপতি কামরুল হাসান বাবুল।

তাদের মধ্যে আরফানুল হক রিফাত নৌকা, রাশেদুল ইসলাম হাতপাখা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মনিরুল হক সাক্কু টেবিল ঘড়ি, মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন ঘোড়া ও কামরুল হাসান হরিণ প্রতীক পেয়েছেন।

এছাড়া ১০৬ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৩৬ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। শনিবার সকাল ১০টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী ওই প্রতীক বরাদ্দ দেন।

প্রতীক পাওয়ার পর মেয়র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু বলেন, এটা স্থানীয় সরকার নির্বাচন। এখানে প্রতীক কোনো ব্যাপার নয়। প্রার্থীর আচার-আচরণ দেখে ভোটাররা ভোট দেবেন।

কাজের মূল্যায়ন দেখে ভোটাররা ভোট দেবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি ৭০ ভাগ কাজ করতে পেরেছি। নির্বাচন সুষ্ঠু হলে জয় পাবো। এ জন্য নির্বাচন কমিশনকে লেভেল প্লেয়িং মাঠ তৈরি করতে হবে।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতের পক্ষে প্রতীক নেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর ও আতিকউল্লাহ খোকন- বাংলাবাজার

আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতের পক্ষে প্রতীক নেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর ও আতিকউল্লাহ খোকন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, প্রতীক আচরণবিধি মেনে প্রার্থীদের প্রচারণা চালাতে হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদ পারভেজ খান ইমরানসহ ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন।