ছাঁটাই-নির্যাতন বন্ধ ও ন্যায্য মজুরির দাবিতে সমাবেশ

বাংলাবাজার ডেস্ক
পোশাক শ্রমিক ছাঁটাই-নির্যাতন বন্ধ ও ন্যূনতম মজুরি ১৬ হাজার টাকা করার দাবিতে ২৭ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংগঠনের সমন্বয়ক ও গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরামের নেতা শহিদুল ইসলাম সবুজ, গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির নেতা প্রদীপ রায়, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক মুক্তি আন্দোলনের নেতা বিপুল কুমার দাস ও এসকে গার্মেন্টস টেক্সটাইল শ্রমিক ফেডারেশনের নেতা ইয়াসিন মিয়া, গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের নেতা মাসুদ রেজা, বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির নেতা মীর মোস্তাক হোসেন, অরবিন্দ ব্যাপারী বিন্দু, জাতীয় সোয়েটার গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স ফেডারেশনের নেতা এএসএস ফয়েজ হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে শ্রমিক নেতারা বলেন, একের পর এক বিভিন্ন গার্মেন্টস কারখানায় শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হচ্ছে। কোনো দাবি নিয়ে মালিকের কাছে গেলে তাদের উপর নির্যাতন করা হয়। বকেয়া বেতন পর্যন্ত তারা পায় না। কারখানায় আধুনিক প্রযুক্তির নামে তারা শ্রমিকদের কাজকে সহজ করার পরিবর্তে তাদেরকে ছাঁটাই করছে। তুলনামূলক সস্তা বেতনের শ্রমিক পাওয়ার জন্যে পুরাতন শ্রমিকদের ছাঁটাই করে মুনাফার রাস্তা পরিষ্কার করছে। এক্ষেত্রে সরকার ও প্রশাসন শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। বিভিন্ন কারখানায় দুর্ঘটনার কারণে নিহত-আহত শ্রমিকদের পরিবারে এখনও পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়নি। কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়নি।

যে শ্রমিকদের শ্রমে-ঘামে এদেশের অর্থনীতির চাকা সচল থাকে, তাদের জীবনের এই করুণ দশা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না। শ্রমিকদের কাজের বিকল্প ক্ষেত্র না করে বা পুনর্বাসনের পরিকল্পনা না করে এইভাবে একের পর এক ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেয়ার এখতিয়ার কোনো মালিকেরই নেই। শ্রমিকরা এটা কিছুতেই মেনে নিবে না। আমরা শ্রমিক ছাঁটাইয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাবো। তাদের উপর নির্যাতন-মামলা বন্ধ করা হোক। অন্যথায় সারা দেশের শ্রমিক-জনতা ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলব। সেই লড়াইয়ে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি।