মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

লাইন ধরে গরুর মাংস কিনছে মানুষ

লাইন ধরে গরুর মাংস কিনছে মানুষ

করোনা পরবর্তী বিশ্ব অর্থনীতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এরপর সেই অর্থনৈতিক মন্দায় নতুন ঢেউ যুক্ত করে ফিলিস্তিন-ইসরাইল যুদ্ধ। এরপর বিশ্বের প্রায় সব দেশেই নিত্যপণ্যের দাম বাড়তে শুরু করে। বাদ যায় নি বাংলাদেশও। দ্রব্যমূল্যের ওই ঊর্ধ্বগতিতে নাজেহাল হয়েছে দেশের মানুষ। সে সময় আমিষের চাহিদা পূরণ করতে হিমশিম খেয়েছে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তের মানুষেরা। তবে সম্প্রতি ভিন্ন এক চিত্রের দেখা মিলছে গরুর মাংসের দোকানগুলোতে। মাংসের দোকানে লেগেছে নিম্ন-মধ্যবিত্তদের লম্বা লাইন। কারণ ২০০ টাকা কমে ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস। কোথাও কোথাও ৫৮০ টাকা দরে প্রতি কেজি মাংস বিক্রি হচ্ছে।

বিশেষ করে পুরান ঢাকার কসাইটুলি, বেচারাম দেউড়ি, কেরানীগঞ্জের জিনজিরা, মালিবাগ আবুল হোটেল, রামপুরা-বাড্ডাসহ বিভিন্ন এলাকায় ৫৮০-৬৫০ টাকা কেজিতে মাংস বিক্রি হতে দেখা গেছে।

লাইন ধরে মাংস কিনছেন যারা তাদের মন্তব্য হচ্ছে, সাধারণত ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা কেজিতে গরুর মাংস বিক্রি হয়। সেখানে হঠাৎ ৬০০ টাকায় নেমে আসায় অনেকদিন পর কিনতে পারছেন তারা।

যদিও এ নিয়ে সবার মধ্যেই কৌতূহল তৈরি হয়েছে। অনেকে ৬০০ টাকা কেজি দরে মাংস বিক্রি নিয়ে নানা রকম কথা বলছেন, কেউ কেউ বলছেন মাংস আমদানি করা হয়েছে তাই দাম কমেছে, অনেকের মতে আমদানির হুমকিতেই কাজ হয়েছে। কেউ বলছেন অহেতুম দাম বৃদ্ধির ফলে মানুষ গরুর মাংস খাওয়া ছেড়ে দিয়েছিল। তাই বিক্রি পড়ে যায়। এখন নতুন করে বিক্রি বাড়াতে এ পদক্ষেপ নিয়েছেন বিক্রেতারা। আবার অনেকে বলছেন, সামনে নির্বাচন তাই সরকারের কড়াকড়িতেই দাম কমেছে। সে যাই হোক হঠাৎ কেজিতে ২০০ টাকা কমে যাওয়া দেশের জন্যে বিরল বলে মনে করছেন অনেকে।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ