শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৪

একদিনে সড়কে ঝরল ২০ প্রাণ

একদিনে সড়কে ঝরল ২০ প্রাণ

❏ রাজধানীতে ৪, পিরোজপুরে ৮, ফরিদপুরে ৩, সিলেটে ১, ঠাকুরগাঁওয়ে ১, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১ ও জয়পুরহাটে ২ জন নিহত

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের ৭ জেলায় শুক্রবার ছুটির দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ২০ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীতে ৪, পিরোজপুরে ৮, ফরিদপুরে ৩, সিলেটে ১, ঠাকুরগাঁওয়ে ১, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১ ও জয়পুরহাটে নিহত হয়েছেন ২ জন।

রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ চারজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার যাত্রাবাড়ী, কামরাঙ্গীরচর ও উত্তরখানে ঘটা এ দুর্ঘটনাগুলোতে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গের সামনে বসে আর্তনাদ করছেন এক মেয়ে। বাবার মরদেহের অপেক্ষায় তার অঝোরে কান্না কিছুতেই শান্ত করতে পারছেন না আত্মীয়রা।

জানা গেছে, ছুটির দিনটিতে রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর পূর্ব রসূলবাগ বাসার সামনে খেলা করছিল মাদ্রাসা পড়ুয়া সাত বছরের শিশু ইয়াসিন। বেপরোয়া গতির অটোরিকশার ধাক্কায় শিশুটিও না ফেরার দেশে পাড়ি জমায়। একই দিন সকালে ওয়ারীর বাসা থেকে বের হয়েছিলেন ষাটোর্ধ্ব মতিউর রহমান। মেয়েকে কথা দিয়েছিলেন, রোজা উপলক্ষে বাজার করে বাসায় ফিরবেন। তবে সায়েদাবাদ জনপদ মোড়ে বেপরোয়া বাসের চাপায় সড়কেই লাশ হয়ে বাড়ি ফেরা হলো না তার। যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তায় দুবাসের মাঝে চাপা পড়ে লাইনম্যান ইমরান মারা যান। সকালে উত্তরা থেকে কাজ শেষ করে গাজীপুরের বাসায় ফিরছিলেন আলী হোসেন। পথে উত্তরখানে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি অটোরিকশার ধাক্কায় তিনি নিহত হন। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহগুলো স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

পিরোজপুর: সদর উপজেলার পাড়েরহাট সড়কের ঝাউতলা বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন এলাকায় শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে বাস-অটোরিকশা ও মোটরসাইকেলের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ৮ জন নিহত হয়েছেন। এ দুর্ঘটনায় অন্তত ১৩ জন গুরুতর আহত হন। নিহতরা হলেন- জেলার সদর উপজেলার উত্তর শংকরপাশা গ্রামের জাকির হোসেন হাওলাদারের ছেলে নাঈম হাওলাদার (১৯), একই গ্রামের মোসাম্মাৎ মানসুরা বেগম (৫০), জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার গদারহাওলা গ্রামের আক্কেল আলী হাওলাদরের ছেলে হেমায়েত হাওলাদার (৫০), একই গ্রামের ইদ্রিস ফরাজীর ছেলে মো. খায়রুল ফরাজী (২০) ও স্বপন। বাকি ২ জনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। নিহতদের ৬ জনই অটোরিকশাটির যাত্রী ছিলেন। আর বাকি দুইজনের একজন মোটরসাইকেলচালক ও অন্যজন বাসযাত্রী।

ফরিদপুর: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় দ্রুতগতির একটি বাস উল্টে ঘটনাস্থলে দুইজন নিহত ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হন কমপক্ষে ১৫ জন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা-ভাঙ্গা-বরিশাল মহাসড়কে ভাঙ্গা উপজেলার চুমুরদী বাবলাতলা বাজার নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি খায়রুল আনাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে বরগুনা থেকে ছেড়ে আসা ইমরান পরিবহনের একটি বাস ভাঙ্গার চুমুরদী এলাকায় এসে পৌঁছলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে যায়। এ সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- পাবনা জেলার সাঁথিয়া থানার পুনডুরিয়া গ্রামের মৃত ইদ্রিস মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম সুরুজ (৪৫), অন্য দুইজনের নাম-পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া আহত নারী, পুরুষসহ প্রায় ১০ জন ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন।  

জয়পুরহাট: জয়পুরহাটের কালাইয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় দুইজন নিহত হয়েছেন। এর আগে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কালাই পৌরসভার সরাইল এলাকায় দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত আরও ৩ জন চিকিৎসাধীন আছেন। নিহতরা হলেন- মোছা. ফাহিমা (৪০) ও মো. রোকন (১৪)। ফাহিমা বগুড়ার শিবগঞ্জ থানার রাঙ্গামাটি গ্রামের হেলালের স্ত্রী। আর রোকন একই গ্রামের আ. কাদেরের ছেলে। আহতরা হলেন- মাইক্রোবাসের চালক আ. রশিদ (৪৫), যাত্রী পাপিয়া (৩৫) ও ফারিয়া জুঁই (১৬)। তারা সবাই রাঙ্গামাটি গ্রামের বাসিন্দা।

সিলেট: সিলেট তামাবিল মহাসড়কে জাফলংগামী পর্যটকবাহী বাসের সঙ্গে সিলেটগামী পাথরবোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক শিশু নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হন আরও অন্তত ১০ জন ৷ শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুর উপজেলার উমনপুর এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত পরশ (৬) ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর থানার সালিহর গ্রামের রাসেল মিয়ার ছেলে ৷

ঠাকুরগাঁও: জেলায় অ্যাম্বুলেন্স ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও চারজন। শুক্রবার বিকেলে সদর উপজেলার ২৯ মাইল নামক স্থানে ঠাকুরগাঁও-দিনাজপুর মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মোটরসাইকেল চালক সদর উপজেলার পূর্ব বেগুনবাড়ি নতুন পাড়া গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে রাসেল (১৮)। এ দুর্ঘটনায় আহতরা হলেন - সদর উপজেলার রুহিয়া ধর্মপুর গ্রামের হরিশ রায়ের ছেলে ঠান্ডি রাম (৩৫), ২৯ মাইল এলাকার মানিকের ছেলে মেহেদী (২০), পূর্ব বেগুনবাড়ি গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে ফিরোজ (২০) ও ঠাকুরগাঁও পৌর শহরের শান্তিনগর এলাকার শচীনের স্ত্রী সুমিত্রা রানী (৪০)।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে শাহার মোল্লা (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে পৌর এলাকার শান্তিনগরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আলম জানান, ফজরের নামাজ আদায় করে সকাল সোয়া ৬টার দিকে বড় বাজার-ধরখার সড়ক হয়ে বাড়ি ফিরছিলেন শাহার। এসময় আখাউড়াগামী একটি অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দিলে গুরুতর আহত হন তিনি। এ অবস্থায় শাহারকে উদ্ধার করে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর অটোরিকশাচালক পালিয়ে গেছেন।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ