মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সান্তোসের মতো কোচ আসবে যাবে কিন্তু রোনালদো?

সান্তোসের মতো কোচ আসবে যাবে কিন্তু রোনালদো?

রিয়াজুল হক

এভারেজের দেশে যখন এক্সসেপশনাল কেউ জন্ম নেয়, তখন তাকে প্রতিনিয়তই প্রমাণ করতে হয় যে, সে অন্যদের থেকে যোজন যোজন এগিয়ে রয়েছে। সে অন্য সবার থেকে আলাদা। মিরাকল ঘটিয়েই নিজের জায়গা সংরক্ষণ করে রাখতে হয়। 

বিশ্বকাপ ফুটবলের ২২তম আসর চলছে। এর মধ্যে ১৯৬৬, ১৯৮৬ এবং ২০০২ সালে পর্তুগাল বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল। বিষয়টা খুবই পরিষ্কার যে, কত বছর পর পর পর্তুগাল যোগ্য দল হিসেবে বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছে। অথচ রোনালদো জাতীয় দলে আসার পর ২০০৬ সাল থেকে প্রতিবারই পর্তুগাল বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করছে। এই পাঁচবারের প্রতিবারই দলে একমাত্র বিশ্বমানের প্লেয়ার ছিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

আমাদের দেশেই পর্তুগালের নাম জানতো কয়জন? অথচ এখন সেই পর্তুগালের সাপোর্টারও তৈরি হয়েছে। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো-ই একমাত্র কারণ।

অথচ যেভাবে তাকে বিদায় করানো হলো, বিষয়টা সত্যিই নিন্দনীয়। শত বছরেও পর্তুগালে এরকম খেলোয়াড় আর আসবে কিনা, সেটা ভবিষ্যতেই দেখা যাবে। তবে পর্তুগালের ইতিহাসে এরকম প্লেয়ার কখনোই ছিল না, এটা নিশ্চিত।

ইতালির মত দেশ যেখানে বিশ্বকাপে জায়গা পায়না, সেখানে পর্তুগাল প্রতিবার পেয়েছে। মূল কারণ, পর্তুগালে একজন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ছিল।

ইনজুরি ছাড়া রোনালদোর মত খেলোয়াড় (একই সাথে ক্যাপ্টেন) কে সাইড বেঞ্চে বসিয়ে রাখা যায়, এটা খামখেয়ালি এক কোচের মাধ্যমে বিশ্ববাসী দেখলো। আর তার সতীর্থরা প্রমাণ করলো, বেশি এগিয়ে যাওয়া সতীর্থকে তারা আপন করে নিতে পারে নি।

সময় বলে দেবে একজন খেলোয়াড়ের একক নৈপুণ্যে পর্তুগাল আবার পরপর ৫ বার বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে কিনা কিংবা ইউরোপের চ্যাম্পিয়ন হতে পারবে কিনা? 

সান্তোসের মতো কোচ পর্তুগালে আসবে যাবে কিন্তু রোনালদোর মতো খেলোয়াড় পর্তুগালের মত দেশে আর আসবে কিনা, আর আসলেও আমাদের জীবদ্দশায় দেখতে পাবো কিনা, সেটাই বড় প্রশ্ন?

লেখক: যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক।

সম্পাদক : তাসকিন ফাতেমা

প্রকাশক : জোবায়ের আহমেদ