মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪

আওয়ামী লীগ করে উন্নয়ন, বিএনপি চালায় লুটপাট: প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ড মাঠের জনসভায় বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা -ইন্টারনেট

চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ড মাঠের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ করে উন্নয়ন, বিএনপি করেছে লুটপাট। তারা গণতান্ত্রিক ধারা পছন্দ করে না। অথচ দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই সার্বিক উন্নতি হচ্ছে। বর্তমান সরকার জনগণের সার্বিক জীবনমান বদলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

চট্টগ্রাম মহানগর এবং উত্তর-দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় রোববার বিকেলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মুক্তিযুদ্ধের শেষ দিকে ১০ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর দোসর আলবদর বুদ্ধিজীবী হত্যাযজ্ঞ শুরু করে জানিয়ে এই তারিখে ঢাকায় বিএনপির সমাবেশ ডাকার সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, এই তারিখটা আসলে বিএনপির প্রিয় সেই হত্যাযজ্ঞের কারণে।

বিএনপিকে যুদ্ধাপরাধীদের দল আখ্যা দিয়ে তাদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

একইসঙ্গে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবার সরকারকে ক্ষমতায় আনার আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী।

এটি ছিল গত ১০ দিনের মধ্যে বঙ্গবন্ধুকন্যার দ্বিতীয় সমাবেশ। গত ২৪ নভেম্বর তিনি যশোরে একটি জনসভায় অংশ নেন।

চট্টগ্রামের কথা সব সময় মনে পড়ে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাবা জেল থেকে বের হলেই চট্টগ্রামে নিয়ে আসতেন। করোনার কারণে দীর্ঘ সময় আসতে পারেনি তাই আজ (রোববার) হাজির হয়েছি।

ভাষণের শুরুতেই দলীয় নেতাকর্মী ও সর্বসাধারণের উদ্দেশে স্থানীয় ভাষায় সম্ভাষণ করেন। বলেন, ‘অনারা ক্যান আছন, গম আছননি?’ এ সময় নেতাকর্মীরা উল্লাসে ফেটে পড়েন।

গত ৮ অক্টোবর এই ময়দানেই বিএনপির ধারাবাহিক বিভাগীয় সমাবেশের শুরু, যার অংশ হিসেবে ১০ ডিসেম্বর রাজধানীতে জমায়েতের ঘোষণা আসে। সেই পলোগ্রাউন্ডে শেখ হাসিনার এই সমাবেশ ঘিরে আওয়ামী লীগের চ্যালেঞ্জ ছিল বিপুল জনসমাগমের।

সেই চ্যালেঞ্জে দৃশ্যত তারা সফল। বিশাল ময়দান ছাড়িয়ে নেতাকর্মীদের ভিড় ছড়ায় আশপাশের এলাকায়।

বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা গায়ে নানা রঙের রঙিন জামা, মাথায় ক্যাপ পরে জনসভায় যোগ দিতে আসেন। বিভিন্ন ইউনিটের রঙিন পোশাকের বর্ণিল রঙে সাজে পুরো মাঠ ও আশপাশের বিভিন্ন সড়ক।

ময়দানের পশ্চিম প্রান্তে ১৬০ ফুট দৈর্ঘ্যের নৌকা প্রতিকৃতির ওপর নির্মাণ করা হয় বিরাট মঞ্চ। লাল-নীল, সবুজ, সাদা, হলুদসহ নানা রঙের বেলুনে বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে পুরো মাঠ।

নিরাপত্তার জন্য বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে কয়েক স্তরে ভাগ করা হয় জনসভা মাঠকে। মঞ্চ ও মঞ্চের আশপাশের ব্লকগুলোতে ছিল বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ নবীন