রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪

জমে উঠেছে বেসিস নির্বাচন

আইটিখাতকে দেশের সর্ববৃহৎ খাতে পরিণত করার প্রত্যয় টিম সাকসেসের আমিনউল্লাহর

❏ আইটিখাতকে দেশের সর্ববৃহৎ খাতে পরিণত করার প্রত্যয় টিম সাকসেসের আমিনউল্লাহর

দেশের সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তি সেবা খাতের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) নির্বাচন জমে উঠেছে। ৮ মে রাজধানীর মহাখালীর রাওয়া কনভেনশন সেন্টারে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২০২৪-২৬ মেয়াদের কার্যনির্বাহী কমিটির এ নির্বাচনে টিম সাকসেস, টিম ওয়ান ও টিম স্মার্ট-এ তিন প্যানেলের ৩৩ জন প্রার্থীর মধ্য থেকে নিজেদের নেতা নির্বাচিত করবেন ১ হাজার ৪৬৪ জন ভোটার। এদের মধ্যে সাধারণ থেকে ৯৩২, সহযোগী থেকে ৩৮৯, অ্যাফিলিয়েট থেকে ১৩৪ ও আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরি থেকে ৯ জন ভোটার হয়েছেন।


এরমধ্যে টিম সাকসেস প্যানেলের প্রতিনিধি হয়ে লড়ছেন এলিয়েন টেকনোলজির কর্নধার মোহাম্মদ আমিনউল্লাহ। আইটিখাতকে দেশের সর্ববৃহৎ খাতে পরিণত করার প্রত্যয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, সফটওয়্যার ও শিল্পের মেধাস্বত্ব আইন, কপিরাইট, প্যাটেন্ট, ডিজাইন, ট্রেডমার্ক, ট্যাক্স, ভ্যাট, ট্যাক্স এক্সেম্পশন, ইনসেন্টিভসহ আইটি খাতকে সর্ববৃহৎ খাতে পরিণত করা পর্যন্ত সরকারের সাথে দর কষাকষি করবো। একইসঙ্গে ২০৪১ সাল পর্যন্ত কর এক্সেম্পশনের দাবি আদায় করবো। এছাড়া সব ধরনের আইন ও নীতিমালার উপযোগী সংশোধন এবং সঠিকভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বেসিসের পক্ষে সরকারকে সরাসরি সহযোগিতা করে পলিসি লেভেলে জোড়ালোভাবে কাজ করতে চাই।

তিনি বলেন, বিশেষ করে ইনসেন্টিভ ১০ শতাংশ থেকে ৮ শতাংশে নেমে এসেছে। সেটাকে পুনরায় ১০ শতাংশে পুনর্বহাল করতে জোড়ালোভাবে দাবি উত্থাপন করবেন।

বিশ্বব্যাংকের একটি উইং এমজিএফ (ম্যাচিং গ্র্যান্ট ফ্যাসিলিটি) এ ৬ বছর সফলতার সাথে ফিনান্সিয়াল এন্ড ম্যানেজমেন্ট কনসালট্যান্ট পদে দায়িত্ব পালনের পর চাকরি ছেড়ে দিয়ে ব্যবসায় নামেন তিনি। পারিবারিক ব্যবসা গার্মেন্টস ও এগ্রোর পাশাপাশি তথ্য প্রযুক্তি খাতে এলিয়েন টেকনোলজি লিমিটেড নামে ২০০৪ সালে একটি সফটওয়্যার কোম্পানি গড়ে তোলেন। বিশ্বব্যাংকে কর্মরত অবস্থায় দেশের রপ্তানিকারকদের কমপ্লায়েন্স ডেভেলপমেন্ট এর জন্যে প্রায় ৪০০ প্রাইভেট অর্গানাইজেশনে ফান্ডিং করার বিশাল এক অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে কিভাবে দেশের আইটি ইন্ডাস্ট্রিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, তার একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনা করছেন তিনি।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ নবীন